শৃংখলা-আচরণ

০১।

সরকারী কর্মচারী (শৃংখলা ও আপীল) বিধিমালা, ১৯৮৫ এবং সংশোধনীসমূহ

০২।

উপরোক্ত বিধিমালার ব্যাখ্যা

০৩।

উপরোক্ত বিধিমালার আওতায় ক্ষমতা অর্পণ

০৪।

সাময়িক বরখাস্ত, ছুটি এবং অবসর ছুটিকালীন সময়ের সুযোগ-সুবিধা

০৫।

সাময়িক বরখাস্ত জনিত শূন্যপদ পূরণ

০৬।

ফৌজদারী মামলায় সাজাপ্রাপ্ত সরকারী কর্মচারীকে চাকুরী হইতে অপসারণ

০৭।

বিভাগীয় মামলার পুনঃতদন্ত

০৮।

সাময়িক বরখাস্তকালীন সময়ে সংশিলষ্ট কর্মচারীর গতিবিধি

০৯।

জামিনপ্রাপ্ত কর্মচারীর অবস্থা সংক্রান্ত নির্দেশাবলী

১০।

তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ

১১।

দুর্নীতির কারণে সরকার কর্তৃক পাবলিক সার্ভেন্টদের বিরচদ্ধে অভিযুক্ত-করণার্থে প্রদত্ত মঞ্জুরীর ফলে তাহাদেরকে সাময়িকভাবে বরখাস্তকরণ সংক্রান্ত।

১২।

সাজাপ্রাপ্ত গণকর্মচারী বরখাস্তকরণ অধ্যাদেশ, ১৯৮৫

১৩।

গণকর্মচারী (বিশেষ বিধান) অধ্যাদেশ, ১৯৭৯ ও সংশোধনীসমূহ

১৪।

গণকর্মচারী শৃংখলা (নিয়মিত উপস্থিতি) অধ্যাদেশ, ১৯৮২ ও এই
সংক্রান্ত নির্বাহী নির্দেশনা।

১৫।

গণকর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা, ১৯৭৯

১৬।

উপরোক্ত বিধিমালার ব্যাখ্যা ও এই সংক্রান্ত নির্দেশাবলী

১৭।

প্রশাসনিক ট্রাইব্যুনাল আইন, ১৯৮০ ও সংশোধনীসমূহ

১৮।

ক্রিমিনাল ‘ল’ এমেন্ডমেন্ট (স্যাংশন ফর প্রসিকিউশন) রচলস, ১৯৭৭ এবং সংশোধনীসমূহ।

১৯।

দুর্নীতি দমন (সম্পদ ও দায়দেনার হিসাব) বিধিমালা, ১৯৯৩
Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s